• রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার: প্রধানমন্ত্রী কোটাবিরোধীদের আন্দোলন থামানো উচিত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঠাকুরগাঁও জেলাকে শিশুশ্রমমুক্ত ঘোষণা প্রক্রিয়াধীন : শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী নোয়াখালীর মেঘনায় অজ্ঞাত যুবকের লাশ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে স্বাধীনতাবিরোধীরা ভর করেছে : ওবায়দুল কাদের ক্ষমতাচ্যুত হলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী সরকার চাইলে কোটা পরিবর্তন-পরিবর্ধন করতে পারবে : হাইকোর্ট ছাত্রদের বোঝা উচিত, রায় যখন নেই তাহলে আন্দোলন কেন? ফল সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানাল ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

আফগানিস্তানকে হারিয়ে টেস্টে আইরিশদের ইতিহাস

স্পোর্টস রিপোর্টার : / ৫৬ Time View
Update : শুক্রবার, ১ মার্চ, ২০২৪

সবুজবাংলা২৪ডটকম, ঢাকা : সাত বছর ধরে টেস্ট ক্রিকেট খেলছে আয়ারল্যান্ড। অ্যান্ড্রু বালবার্নির দলটি বছরপ্রতি গড়ে প্রায় একটি ম্যাচ খেলেছে।
আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের অষ্টম টেস্ট খেলতে নেমে প্রথম জয়ের ইতিহাস গড়েছে আইরিশরা। যদিও আগে ব্যাটিং করা হাশমতউল্লাহ শহিদীর দল মাত্র ১১১ রানের লক্ষ্য দেওয়ায় তাদের কাজটা সহজই ছিল। তবুও শুরুতে দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়ে কিছুটা হোঁচটই খায় আইরিশরা, সেখান থেকে অধিনায়ক বালবার্নি তাদের ইতিহাসগড়া জয় এনে দিয়েছেন।
মূলত প্রথম ইনিংসেই আফগানিস্তান ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছিল। তাদের করা ১৫৫ রান টপকে প্রথম ইনিংসে ১০৮ রানের লিড পেয়ে যায় আইরিশরা। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৮ রান তুলতে পারে আফগানরা। অর্থাৎ আইরিশদের লিড শোধ করার পর আর মাত্র ১১০ রান তুলতেই শহীদিদের দ্বিতীয় ইনিংস গুটিয়ে যায়। এরপর রান তাড়ায় মাত্র ১৩ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে আইরিশরা। পরবর্তীতে বালবার্নি ও লরকান টাকারের জুটি আয়ারল্যান্ডকে বিপদের হাত থেকে বাঁচিয়েছে। ৬ উইকেট হাতে রেখেই তারা সাদা পোশাকের প্রথম জয় তুলে নেয়।
আইরিশদের স্মরণীয় এই জয়ের সাক্ষী হলো আবুধাবির টলারেন্স ওভাল স্টেডিয়াম। লক্ষ্য তাড়ায় দলীয় ৮ রানেই আউট হয়ে যান ওপেনার পিটার মুর। তিন নম্বরে নামা কার্টিস ক্যাম্ফারও আউট হয়ে যান প্রথম বলেই। প্রথম ইনিংসে ৪৯ রান করা এই ব্যাটসম্যান এবার রানের খাতাও খুলতে পারেননি। বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি হ্যারি টেক্টর, তিনি ফেরেন মাত্র ২ রান করে। এরপরই আরেক ওপেনার বলবার্নি ও অভিজ্ঞ পল স্টার্লিং ২৬ রানের জুটি গড়েন।
যদিও সেটেল হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি স্টার্লিং। ১৪ রান করে তিনি জিয়াউর-উর রেহমানের বলে ফিরেছেন। ম্যাচের বাকি কাজটা সেরেছেন বলবার্নি ও টাকার। পঞ্চম উইকেটে দুজন মিলে ৭২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েছেন। শেষ পর্যন্ত বালবার্নি ৫৮ এবং টাকার অপরাজিত থাকেন ৩৭ রানে। একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি মাত্র তিনদিনেই শেষ হয়ে গেল, যা স্মরণীয় করে রাখল আইরিশরা।
তবে নিজেদের প্রথম টেস্ট জয় পেতে বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি বালবার্নিদের। প্রথম টেস্ট জয় পেতে ম্যাচের হিসাবে আয়ারল্যান্ড কম ম্যাচ খেলেছে জিম্বাবুয়ে, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, ভারত, বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের চেয়ে। প্রথম টেস্ট জিততে সবচেয়ে বেশি ৪৫টি টেস্ট খেলতে হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে, দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বাংলাদেশের লেগেছে ৩৫ ম্যাচ। নিজেদের খেলা প্রথম টেস্টেই জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ড, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান নিজেদের খেলা দ্বিতীয় টেস্টেই প্রথম জয় পেয়েছিল।
এর আগে তারা সাদা পোশাকে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার মর্যাদা পেয়েছিল ২০১৭ সালে। ২০১৮ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে অভিষেক টেস্ট খেলার পর তারা মুখোমুখি ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। যেখানে তারা নিজেদের প্রথম জয় পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে। আফগানদের বিপক্ষে আগের দেখায় ২০১৯ সালে একমাত্র টেস্টে ৭ উইকেটে হেরেছিল আয়ারল্যান্ড।

বিজ্ঞাপন

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

Categories