• রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১১:১৭ পূর্বাহ্ন
  • [gtranslate]
শিরোনাম
ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার: প্রধানমন্ত্রী কোটাবিরোধীদের আন্দোলন থামানো উচিত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঠাকুরগাঁও জেলাকে শিশুশ্রমমুক্ত ঘোষণা প্রক্রিয়াধীন : শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী নোয়াখালীর মেঘনায় অজ্ঞাত যুবকের লাশ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে স্বাধীনতাবিরোধীরা ভর করেছে : ওবায়দুল কাদের ক্ষমতাচ্যুত হলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী সরকার চাইলে কোটা পরিবর্তন-পরিবর্ধন করতে পারবে : হাইকোর্ট ছাত্রদের বোঝা উচিত, রায় যখন নেই তাহলে আন্দোলন কেন? ফল সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানাল ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

মৃত্যুর পথ বেছে নিলো ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী

এসও টুটুল : / ৫৬ Time View
Update : রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

সবুজবাংলা২৪ডটকম, গাজীপুর : গাজীপুর মহানগরীর ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডে দক্ষিণ খাইলকুরে নুসরাত জাহান মীম (১২) নামে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীর আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। সে গাছা থানাধীন ইউনিক একাডেমিক স্কুলের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী। নিহিত মীম শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী থানার ডাহিরপাড়া গ্রামের মাসুদ রানার মেয়ে ।
শনিবার (১০জানুয়ারী)ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ খাইলকুরের আবু সাঈদের ভাড়া বাড়িতে। পরিবার সূত্রে জানাযায়, তাদের ঘর হতে চার ভরি স্বর্ণ এবং ৬,৫০০০০/-(ছয় লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা পাওয়া যাচ্ছে না। বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য চলতে থাকে পরবর্তীতে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে মীম, স্বীকার করেন যে তার প্রেমিক মাসুদ কে দিয়েছে।
তুমি যেহেতু বিষয়টি আব্বাকে জানিয়েছ (পিতা সৌদি প্রবাসী) এর ফল পাইবা। এই কথা বলে মীম রাত ৯ টায় তার রুমে প্রবেশ করে দরজা আটকে করে দেয়। পরবর্তীতে ভিকটিমের মা কয়েকবার ভিকটিমকে খাওয়ার জন্য বলে, কিন্তু মীম খাবে না বলে জানায়। পরের দিন ১০ তারিখ সকাল ১১ ঘটিকায় মা আকলিমা আক্তার সুমি দরজায় ডাকাডাকি করতে থাকে, দরজা না খোলায়, দরজার নিচ দিয়ে দেখতে পাই যে, মীমের পা ঝুলে আছে। তখন মা আশেপাশের লোকজনদেরকে খবর দেয়। মীমের মা এবং মামী আমাদের জানান, ৩৫ বছরের মাসুদ ভ্যান দিয়ে সবজী বিক্রেতার সাথে আমাদের মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে , মাসুদ কে ভুলতে পারবে না। মামী তানিয়ার মোবাইল দিয়ে মীম ওই ছেলের সাথে যোগাযোগ করত বলে জানাযায়।
বাড়ির (দায়িত্বরত) ম্যানেজার জানায়, এই মেয়ে সবজি বিক্রেতার সাথে স্কুলে আসা যাওয়া সময়
দেখা-সাক্ষাতের মাধ্যমে পরিচয় হয়ে গভীর সম্পর্কে আবদ্ধ হয়, এই বিষয়টি নিয়ে বিগত চারদিন ধরে মা মেয়ে এবং মামীর সাথে উচ্চ বাচ্চ কথাবার্তা এমন কি মীম কে মারধর পর্যন্ত করেন। স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ বিষয়টির
তথ্য জানতে গেলে সঠিক তথ্য না দিয়ে নিহত মীমের মামী তানিয়া এবং মামার বন্ধু অলিউল্লা আমাদেরকে নিউজ প্রকাশ করতে না করেন। পরবর্তীতে সাংবাদিকরা কারণ জানতে চাইলে বলেন বাসায় এসে কথা বলেন এবং বিদেশে থাকা মীমের বাবা এবং তার মামার সাথে ফোনে কথা বলবেন। মীমের মামার বন্ধু অলিউল্লার ফোন দিয়ে ইমুতে প্রথমে অলিউল্লাহ কথা বলেন,পরে মামী তানিয়া কথা বলেন। তার পরবর্তীতে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে চান। নিউজ প্রকাশ না করতে কারণ জানতে চাইলে, সৌদি প্রবাসী মামা আলামিন সাংবাদিকদের পরিচয় জানতে চাইলে, পরিচয় দেন। আমাদের এই নিউজ করতে পারবেন না, তার কথার উত্তরে সাংবাদিকরা বলেন, যা ঘটনা ঘটেছে আমরা তাই নিউজের মাধ্যমে প্রকাশ করবো এটা আমাদের দায়িত্ব। মামা আলামিন বলেন আমাদের এই নিউজ করা যাবে না, বলে
ফোনে বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করেন। পরবর্তীতে স্থানীয় গাছা থানায় সাংবাদিকরা এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ডায়েরি নং ৫৬১- ১০-০২-২০২৪ ইং।
বিষয়টি গাছা থানায় সংবাদ আসলে গাছা থানার এসআই সুমন খান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ২য় তলার উত্তর পাশের ফ্ল্যাটের পূর্ব পাশের ভিকটিমের শয়ং কক্ষে দরজা ভেঙ্গে রুমে প্রবেশ করে ভিকটিম কে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না দিয়ে ফাঁস দেওয়া অবস্থা হইতে নিচে নামিয়ে সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করেন। ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত গাছা থানা পরিদর্শন করেন।
এ বিষয়ে গাছা মেট্রো থানার অফিসার্স ইনচার্জ শাহ আলম বলেন, নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এটি আত্মহত্যা না আত্মহত্যার প্ররোচনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সাংবাদিকরা একটি সাধারণ ডায়েরি করেন, এ বিষয়ে তদন্তাধীন রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

Categories